বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০১৯, ০৯:১৫:১১
সংবাদ শিরোনাম
 
পুঠিয়ায় রাজার আমলের সিন্দুকের সন্ধান: এলাকায় চাঞ্চল্য
Online Desk | প্রকাশ: ০৯:২৫, শনিবার, ২ জুলাই ২০১৬

পুঠিয়া প্রতিনিধি:
রাজশাহীর পুঠিয়ায় মাটি খনন করতে গিয়ে রাজার আমলের একটি সিন্দুকের সন্ধান পাওয়ায় এলাকায় চাঞ্চলের সৃষ্টি হয়েছে। খবর শোনা মাত্রই এলাকার জনগণ তা দেখার জন্য ভীড় জমাচ্ছে।


জানা গেছে, রাজশাহী জেলার পুঠিয়া উপজেলা সদরে ত্রিমোহনী বাজার রাজবাড়ী পেছনের দিকে সুপারী বাগানের কোনায় মানিক সরকারের বাড়ির পার্শ্বে মাটি খুড়ে টয়লেট তৈরী করার সময় একটি সিন্দুকের দেখতে পায়।

 

এ ঘটনাটি জানা জানি হলে শুক্রবার রাতে পুঠিয়া পৌর সভার মেয়র আসাদুল হক আসাদ, পুঠিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আতাহার আলী শাহ্, থানার অফিসার ইনচার্জ হাফিজুর রহমান এবং শনিবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ নুরুজ্জামান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।


শনিবার বেলা ১১ টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে জানা যায়, পৌর সভার কাউন্সিলর হারুন উপস্থিত থেকে শ্যামল, পাটুল ও আরিফকে দিয়ে মাটি খনন করে রাজার আমলের সিন্দুকটি উঠানোর চেষ্টা করছে।


বাড়ির মালিক মানিক সরদারের স্ত্রী সাজেদা বেগম জানান, আমরা পৌরসভা থেকে পায়খানা (টয়লেট) তৈরির জন্য পাট পেয়েছি। তাই আমার স্বামী আর আমি মিলে বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে পায়খানা (টয়লেট) তৈরির জন্য মাটি খনন করি। মাটি খনন করতে করতে দেখতে পাই একটি টিনের অংশ দেখতে পায়। এরপর আমার স্বামী গাছকাটা মিস্ত্রি কাজ শেষে শুক্রবার বিকেল আবার খনন কাজ শুরু করে। এ সময় টিনের পাতির তৈরি সিন্দুক দেখতে পায়। সেই সিন্দুকের ছোট বড় ৩ টি বক্স রয়েছে। আর সেই বক্সের একটিতে মাটি ভর্তি ও অপর দুইটিতে পানি ভর্তি রয়েছে। তবে ধন, রত্ন, টাকা-পয়সা কিছুই ছিলনা। এরপর বিষয়টি জানা জানি হলে শুক্রবার রাত ১০ টার দিকে পৌরসভার মেয়র, ইউপি চেয়ারম্যান ও অফিসার ইনচার্জ এসে দেখে যায়।


সিন্দুক নিয়ে যত কথা

 

পুঠিয়ায় জমিদার বাড়ী চত্তরে মাটির নিচে সন্ধান পাওয়া দু’টি সিন্দুক নিয়ে নানান জনের নানা কথা বলছে। কি ছিল ঐ সিন্দুক দু’টিতে। কেউ বলছেন সিন্দুক দু’টি বর্গীয় হামলা থেকে সম্পদ বাঁচাতে জমিদারের কেউ এ স্থানে পুতে রাখে। আবার কেউ বলছেন জমিদারী প্রথা উচ্ছেদে সিন্দুকে গুপ্তধন পুরে রেখেছে দেশ ত্যাগের পূর্বে।


শনিবার দুপুরে পুঠিয়া চারআনী রাজার ধ্বংস প্রাপ্ত প্রাসাদের পাশে সিন্দুক খুড়তে দেখা যায় দুইজন শ্রমিককে। জমিটি বর্তমানে অর্পিত্ত সম্পত্তি। সেখানে বসবাস করে মৃত লৈয়মের ছেলে মানিক নামের এক ভূমিহীন। পায়খানার রিংপাট বসাতে মাটি খুড়তে গেলে সিন্দুক দু’টির সন্ধান পায় ভূমিহীন মানিক।


এ বিষয়ে পুঠিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ হাফিজুর রহমান সিল্কসিটি নিউজকে জানান, সিন্দুকের ভেতরে কোন গুপ্তধন ছিলনা। তবে সন্ধানদাতা মানিককে পুলিশ থানায় আটকে রাখায় দর্শনার্থীরা নানান জনে নানান কথা বলছেন। তাদের মতে সিন্দুকে গুপ্তধন থাকুক আর না থাকুক, উঠানোর সময় একজন ম্যাজিস্ট্রেট থাকার দরকার ছিল।


স/শ

 

পাঠকের মন্তব্য ( ০ )
Login